Welcome to Zero to Infinity Q&A. To ask questions or answer any question please Register first. Thank You.

ব্লাক হোলের বিকিরণ কীভাবে সম্ভব?

2 like 0 dislike
419 views
asked Jun 21, 2015 in Astronomy by Naiem khan (691 points)
14% Accept Rate

recategorized Jun 23, 2015 by Abdullah Al Mahmud
আগে তো জানতাম ব্লাক হোল থেকে কিছুই বের হতে পারে না তবে ব্লাক হোলের বিকিরন জিনিসটা কি?
Share at -
commented Jun 21, 2015 by **কৌতুহলী** (1,573 points)
হকিং  রেডিয়েশন.........
commented Jun 21, 2015 by Naiem khan (691 points)
হকিং রেডিয়েশন টা একটু ব্যাখ্যা করুন প্লিজ!
commented Jun 22, 2015 by **কৌতুহলী** (1,573 points)

আমার নিজেরই এটার বিষয়ে এখনো কৌতূহল শেষ হয়নি। তাই যেটুকু নিজে বুঝি, আপাতত ততটুকুই ব্যাখা করার চেষ্টা করলাম।  

1 Answer

4 like 0 dislike
answered Jun 22, 2015 by **কৌতুহলী** (1,573 points)
edited Jul 3, 2015 by **কৌতুহলী**
 
Best answer

ব্ল্যাক হোলের ঘটনা দিগন্ত ও তার বাইরের চারপাপাশের স্পেস থেকে যে বিকিরণ নিঃসরিত হয়, তাকে বলা হয় হকিং রেডিয়েশন। কোয়ান্টাম মেকানিক্স দিয়ে এই বিকিরণকে সহজে ব্যাখা করা যায়। আমরা মহাশূন্যের যে শূন্যস্থানের কথা ভেবে থাকি, প্রকৃতপক্ষে তা কিন্তু শূন্য নয়। আসলে সেখানে প্রতি মুহূর্তের ভগ্নাংশ পরিমাণ সময়ের মধ্যে অনবরত ভার্চুয়াল কণা-প্রতিকণা জোড়ায়-জোড়ায় তৈরি হয়ে চলেছে। আবার সেই সাথে কল্পনাতীত ক্ষুদ্র সময়ের মধ্যেই এসব কণা-প্রতিকণা পরস্পরের সাথে মিথস্ক্রিয়ায় ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। অর্থাৎ আমাদের অনুভবযোগ্যতার বাইরে এরা তৈরি হচ্ছে এবং বিলীনও হয়ে যাচ্ছে। এটা খুবই প্রাকৃতিক স্বতঃস্ফূর্ত ঘটনা। আগেই বলেছি এই ঘটনা আমাদের মহাবিশ্বের সর্বত্র হচ্ছে, কিন্তু আসল চমৎকৃত ব্যাপারটি  সব জায়গায় ঘটছে না। সেটা ঘটে কেবল ব্ল্যাকহোলের চারপাশে। কারণ ভার্চুয়াল কণা-প্রতিকণা যখন ঘটনা দিগন্ত বা তার কাছাকাছি স্পেসে তৈরি হয়, তখন ব্ল্যাকহোলের তীব্র মহাকর্ষ বল তাদের মিথস্ক্রিয়ার উপর মারাত্বক প্রভাব ফেলে। ব্ল্যাকহোলের প্রচন্ড বলের কারণে সেখানে ঐ কণাদ্বয় একে অপরের সাথে মিলিত হয়ে বিলীন হওয়ার সুযোগই পায় না। তবে অবাক করার মত ব্যাপারটি হল ব্ল্যাকহোল কণাদ্বয়কে একইভাবে আকর্ষণ করে না। একটিকে নিজের দিকে টেনে নিয়ে আরেকটিকে বিপরীতদিকে বাইরে ঠেলে দেয়। আবার কণাটিকে বাইরে নির্গত হতে যে শক্তির দরকার হয় সেই শক্তি সরবারহ করে ব্ল্যাকহোল নিজে। তাই এই ঘটনাটি যতবারই ঘটতে থাকে, ততবারই ব্ল্যাক-হোল থেকে শক্তি নির্গত হতে থাকে। আর এটাই সেই হকিং রেডিয়েশন।

image  image

    image              hawking radiation এর চিত্র ফলাফল                    

বিঃদ্রঃ কোন বস্তু থেকে বিকিরণ নির্গত হওয়ার অর্থ হল তার শক্তি ক্ষয় হওয়া। আর আইনস্টাইনের বিখ্যাত সমীকরণ  E=mc²  অনুসারে বলা যায়, শক্তি ক্ষয়ের মানে হল বস্তুর ভর ক্ষয় হওয়া। তাই বুঝতেই পারছেন, অতি আগ্রাসী মহাকর্ষ বলের ধারক ব্ল্যাকহোল খুব অল্প হলেও প্রতি মুহূর্তেই কিছু না কিছু ভর হারাচ্ছে; যার একমাত্র কারণ সেই হকিং রেডিয়েশন.........

 ***হকিং রেডিয়েশনের সূত্রাবলী***

commented Jun 23, 2015 by Abdullah Al Mahmud (2,187 points)

বিকিরণ মুক্তির কারণ বুঝতে হলে একটু কোয়ান্টাম বলবিদ্যার ধোঁয়াটে জগতে প্রবেশ করতে হবে। কোয়ান্টাম পদার্থবিজ্ঞানের সবচেয়ে বৈশিষ্ট্যপূর্ণ ঘটনাটি হচ্ছে টানেলিং। কিছু কণা অনেকটা সুড়ঙ্গ খননের মতো করে সাধারণভাবে একেবারে অনতিক্রমণীয় বাঁধাও পার হয়ে যেতে পারে। একটা উঁচু বাঁধের দিকে চলমান একটা কণাকে হঠাৎ করেই বাঁধটির ওপারে পাওয়া যায়। আমাদের জগতে এ অসম্ভব; দৌড়ে গিয়ে একটা দেয়ালের গায়ে আছড়ে পড়লে নিজেকে দেয়ালের ওপাশে আবিষ্কারের সম্ভাবনা শূন্য। কিন্তু আণুবীক্ষণিক জগতে এ যেন কোনো ব্যাপারই না।

কোয়ান্টাম টানেলিং এর মাধ্যমেই তেজস্ক্রিয় ইউরেনিয়াম নিউক্লিয়াসের নিবিড়ালিঙ্গন থেকে একটি হিলিয়াম নিউক্লিয়াস নিজেকে মুক্ত করতে পারে, এবং কৃষ্ণবিবরের অন্ধকূপ থেকে উত্থিত হয়ে "হকিং বিকিরণ" মহাবিশ্বের আলোকমেলায় সামিল হতে পারে। কণাগুলো কৃষ্ণবিবরের ঘটনাদিগন্তের অসীম মহাকর্ষক্ষেত্রের বাঁধন সবেগে ছিন্ন করতে পারে না, বরং তাদের মুক্তি ঘটে চোরাই সুড়ঙ্গ পথে। (এযাবৎ কেউ অবশ্যই কোনো কৃষ্ণবিবর লিক হতে দেখেনি। কিন্তু বক্র স্থানকালে কোয়ান্টাম বলবিদ্যা প্রয়োগ করলে এই গাণিতিক ফলাফলটা এত অবশ্যম্ভাবীরূপে বেরিয়ে আসে যে কারো পক্ষেই এটা সন্দেহ করা সম্ভব নয়।)

 

তথ্যসূত্রঃ কৃষ্ণবিবর ডাকাতি, খান মুহম্মদ। জিরো টু ইনফিনিটি মে'১৫। 

4,676 questions

5,801 answers

1,861 comments

15,958 users

68 Online
0 Member And 68 Guest
Most active Members
this month:
    Gute Mathe-Fragen - Bestes Mathe-Forum
    ...