Welcome to Zero to Infinity Q&A. To ask questions or answer any question please Register first. Thank You.

চোখের সমস্যায় লেন্স ছাড়া কি অন্য কোনো ব্যবস্থা আছে?

4 like 0 dislike
1,165 views
asked Feb 26, 2015 in Health & Medicine by অদ্বৈত বিন্দু (733 points)
15% Accept Rate

Share at -

2 Answers

7 like 0 dislike
answered Feb 26, 2015 by **কৌতুহলী** (1,573 points)
edited Jul 3, 2015 by **কৌতুহলী**
 
Best answer

 হ্যাঁ, আছে। সবচেয়ে লেটেস্ট ব্যবস্থা হল ল্যাসিক । এটা এক ধরনের laser eye surgury । এ চিকিৎসায় যে লেজার ব্যবহার করা হয় তাকে বলা হয় এক্সাইমার লেজার। 

 সহজ ভাষায় এক কথায়  বললে, এ প্রক্রিয়ায় লেজার  ব্যবহার করে রোগীর  কর্নিয়ার মাঝখানের অংশ অতিসূক্ষ ভাবে পাতলা করা হয়। ফলে রোগীর জৈবিক লেন্সটি বিকৃত হলেও ওই ছিদ্রপথে আপতিত আলো প্রতিসরিত হয়ে বেকে যায় না, সোজা পথে রেটিনায় পড়ে আর রোগী একেবারে স্পষ্ট দেখতে শুরু করে। এ পদ্ধতি যেমন স্বল্পস্থায়ী (মাত্র  কয়েক মিনিট লাগে), তেমনি খুব ব্যয়বহুল।

এবার একটু বিস্তারিত বলছিঃ-

মাইওপিয়া ও হাইপারমেট্রপিয়ার চিকিৎসায়  যে সব অপারেশন করা হয় তাদের এক কথায় বলা হয় রিফ্রাক্টিভ সার্জারী। এ পদ্ধতিতে সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হচ্ছে এক্সাইমার লেজার। Excited ও  Dimer এই দুটো শব্দ থেকে এসেছে- Excimer (এক্সাইমার)। আর “Dimer” হল আরগন ও ফ্লোরাইড বলে দুটো গ্যাসের সংমিশ্রণ। এই দুটো গ্যাসের একটি করে দুটো এ্যাটম একসাথে মিলে একটা অস্থায়ী ‘মলিকিউল’ তৈরি করে। সেই অস্থায়ী মলিকিউল ভেঙ্গে অতিবেগুনি রশ্নির এর ফোটন নির্গত করে, যা কিনা এই লেজারে ব্যবহৃত হয়। এই লেজারকে বলা হয় ‘ঠাণ্ডা’ লেজার, কারণ এই রশ্মি থেকে কোনো তাপ নির্গত হয় না এবং কর্নিয়ার ক্ষতিও হয় না। কর্নিয়ার কোষগুলোর মধ্যে যে বাঁধন থাকে লেজার রশ্মি সেগুলোকে নষ্ট করে দেয় বা অনেকটা গলিয়ে দেয়। এটা করা হয় অতি সূক্ষভাবে। কারন কর্নিয়া ১২ মিলিমিটার চওড়া এবং ০.৫ মিলিমিটার পুরু। এর মাঝখানের পাঁচ থেকে ছয় মিলিমিটার গোলাকার জায়গায় এই লেজার রশ্মি এক মিলিমিটারের এক হাজার ভাগের মাত্র  বিশ থেকে দু’শ ভাগ নিখুঁতভাবে পাতলা করে দিতে পারে। চশমার পাওয়ার অনুযায়ী কম্পিউটারে নির্ধারণ করে ইচ্ছামত এক মিলিমিটারের হাজার ভাগের যে কোন ভগ্নাংশের কর্নিয়াকে পাতলা করা যেতে পারে। আরেকটি কথা বলা হয়নি, লেজার প্রয়োগের পূর্বে যে স্থানে পাতলা করা হবে, তার উপরের  আবরণ আরেকটি যন্ত্র দিয়ে সামান্য তুলে(দরজার মত খুলে) পাশে সরিয়ে রাখা হয়,আবার শেষে যথাস্থানে বসিয়ে দেওয়া হয়----এই হল ল্যাসিক । এই সম্পূর্ণ প্রক্রিয়াটি সর্বোচ্চ ১০ মিনিট সময় নেয়।               

আরো সহজে বুঝতে ভিডিও-টি দেখতে পারেন-

 

এবার একটু সমালোচনা করি। এ পদ্ধতি কিন্তু রোগীর চোখকে(সঠিক করে বললে লেন্সকে) ঠিক করে দেয় না,বরং কর্নিয়ার একটি স্থান পাতলা করে দেয়  যেন  ঐ স্থান দিয়ে আলো আমাদের সংবেদনশীল রেটিনায় সঠিকভাবে পড়তে পারে। তাছাড়া  কারো কারো কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও হতে পারে। আবার যাদের রেটিনায় সমস্যা তাদের জন্য ল্যাসিক কোন কাজে আসবে না !!!! 

commented Feb 26, 2015 by অদ্বৈত বিন্দু (733 points)
edited Feb 26, 2015 by অদ্বৈত বিন্দু
ধন্যবাদ,,, ভালো ভাবে উপস্থাপন করার জন্য! কিন্তু ভিডিও টা প্লে হচ্ছে না?
commented Feb 27, 2015 by **কৌতুহলী** (1,573 points)
edited Jul 3, 2015 by **কৌতুহলী**
প্লে তো হচ্ছে! আর না হলে এই pageটিকে একবার reload করে নিন।
commented Jun 26, 2015 by আজাদ (4,233 points)
চমৎকার ।
0 like 0 dislike
answered Apr 13, 2016 by MD Abu Siyam (1,289 points)
চোখের সমস্যা হলে সাধারণত চশমা বা লেন্স দেয়া হয়।কিন্তু আজকাল দেখা যায় এগুলো অনেক অসুবিধার কারণ হয়ে দাড়ায়।তাই অনেকে এগুলো ব্যাবহার করতে পারেননা।আর এরজন্য তৈরি করা হয়েছে লেজার সার্জারি।এতে লেজারের সাহায্যে চোখের সমস্যা দুর করা হয়

Question followers

0 users followed this question.

Related questions

4,677 questions

5,802 answers

1,861 comments

16,023 users

117 Online
0 Member And 117 Guest
Most active Members
this month:
  1. Reduan Hossain Riad - 1 points
  2. The Rysul - 1 points
Gute Mathe-Fragen - Bestes Mathe-Forum
...