Welcome to Zero to Infinity Q&A. To ask questions or answer any question please Register first. Thank You.

মানুষ কষ্ট পেলে কাঁদে কেন ?আর কাঁদলে চোখ দিয়ে পানি পরে কেন ?

5 like 0 dislike
1,758 views
asked Jan 25, 2014 in Life by Jobayer Ahmed01 (278 points)
42% Accept Rate
Share at -

2 Answers

4 like 0 dislike
answered Jan 25, 2014 by আজাদ (4,233 points)

আমাদের ল্যাক্রিমাল গ্লান্ড থেকে যে নোনা রস নির্গত হয় তাই কান্না। এটা একটি জৈবিক ক্রিয়া। কান্না তিন প্রকার, বাসালঃ যা চোখ ভেজা থাকতে সাহায্য করে, রিফ্লেক্সঃ যা পেঁয়াজ কাটার সময় বের হয় আর ইমোশনালঃ যেটা শারীরিক-মানসিক ব্যাথার কারনে বের হয়। এই ইমোশনাল কান্নার পেছনে প্রো-ল্যাকটিন হরমোন কাজ করে যা যা শরীর ব্যাথা বা কষ্ট পেলে উৎপন্ন করে। এটাই মূল কারন।
কিন্তু মজার কারন হলো, আমরা শিশুকালে আমাদের দাবী দাওয়া বোঝাতে কেঁদে উঠি কারন তখন এটাই আমাদের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম যতদিন পর্যন্ত কথা বলতে না শিখি। কিন্তু তারপরও আমাদের শরীর-মন সে কথা ভোলে না। সময়-অসময়ে সে যোগাযোগের মাধ্যম বা রেসপন্স হিসেবে বা এটেনশন কেড়ে নিতে কান্নাকে ব্যাবহার করে। ইন্টারেস্টিং ব্যাপার, তাই না?

3 like 0 dislike
answered Jan 25, 2014 by আজাদ (4,233 points)
সেই ছোটবেলা থেকেই আমরা কান্নাকাটি করে আসছি। একসময় কাঁদতাম ক্ষুধা পেলে (এখন ছোটদের দেখে বুঝতে পেরেছি আর কি!), তারপর বন্ধুবান্ধবদের সাথে মারামারি করে আর এখন কারো ব্যবহারে কষ্ট পেলে। সেই কান্নার ধরণও নানা রকম। কেউ কাঁদে উচ্চ স্বরে বিলাপ করে, আবার কেউ কাঁদে মুখ গুঁজে। কিন্তু কান্নার ধরণ যাই হোক না কেন সবার কান্নাতেই যে জিনিসটি কমন তা হলো ‘অশ্রু’। কিন্তু প্রশ্ন হলো কাঁদলে অথবা অতিরিক্ত আনন্দে আত্মহারা হলেই বা কেনই আমাদের চোখ দিয়ে পানি পড়বে?

আমরা যখন কোনো কিছু নিয়ে আপসেট হয়ে যাই তখন আমাদের ব্রেইন এবং শরীর এই বিষয়টি নিয়ে ওভাররিঅ্যাক্ট করে। আর সহজ করে বলতে গেলে ওভারটাইম কাজ করে, ফলে শরীরের ভেতর নানা রকম কেমিক্যাল আর হরমোন তৈরী হয়। আর কান্নার মাধ্যমেই আমাদের প্রয়োজনের অতিরিক্ত এই কেমিক্যাল আর হরমোনগুলো শরীর থেকে বের হয়ে যায়। আর এটা তো জানা কথাই যে কাঁদলে আমাদের বুকের ওপর চেপে বসা বোঝা অনেকটাই হালকা হয়ে যায়। এটাও মূলত এই পদার্থগুলো বেরিয়ে যাবার কারণেই হয়ে থাকে।

কাঁদলে চোখ দিয়ে অশ্রু ঝরার কারণ তো জানা গেলো। এবার চলুন জেনে নেয়া যাক এই ‘অশ্রু’ সম্পর্কেই কয়েকটি মজার তথ্যঃ
# ৭০% মানুষ কাঁদার সময় তাদের কান্নাকে লুকোনোর কোনো চেষ্টাই করে না।
# ২০% মানুষের কান্নাকাটি প্রায় আধাঘন্টা ধরে চলে।
# ৮% মানুষ আবার ঘন্টাব্যাপী তাদের এই কান্নাকাটির ব্যাপারটি চালিয়ে থাকে।
# ৭৭% কান্নাকাটির ব্যাপার হয়ে থাকে ঘরেই, ১৫% হয় গাড়িতে আর কর্মক্ষেত্রে।
# ৮৮.৮% মানুষই কাঁদার পর ভালো বোধ করে থাকে।
# একজন পুরুষ বছরে গড়ে ৭ বার কেঁদে থাকে যেখানে একজন নারীর ক্ষেত্রে এই সংখ্যাটি ৪৭(!) বার।
# সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টা হলো কান্নাকাটির জন্য সবচেয়ে কমন সময়।

4,677 questions

5,802 answers

1,861 comments

16,023 users

112 Online
0 Member And 112 Guest
Most active Members
this month:
  1. Reduan Hossain Riad - 1 points
  2. The Rysul - 1 points
Gute Mathe-Fragen - Bestes Mathe-Forum
...