Welcome to Zero to Infinity Q&A. To ask questions or answer any question please Register first. Thank You.

পৃথিবীর দুই প্রান্তে চৌম্বকীয় মেরু সৃষ্টি হবার কারণ কি?

7 like 0 dislike
3,679 views
asked Oct 29, 2013 in Physics by Salman Yasin (231 points)
100% Accept Rate
Share at -

1 Answer

11 like 0 dislike
answered Oct 30, 2013 by Mustafa Rifat (821 points)
edited Oct 30, 2013 by Mustafa Rifat
 
Best answer

পৃথিবীর দুই প্রান্তে চৌম্বকীয় মেরু কিভাবে সৃষ্টি হল তা বুঝতে হলে আগে পৃথিবীর গঠনটা একটু জানতে হবে।পৃথিবীর একদম ভেতরে থাকে core। এই core এর আবার দুইটা অংশ।একটাকে বলা হয় inner core আরেকটা outer core। যত ভেতরে যাওয়া যায় ভূপৃষ্ঠ থেকে, তাপমাত্রাও ততই বাড়তে থাকে।সে হিসেবে inner core টা তরল হবার কথা।কিন্তু এটা কঠিন অবস্থায় থাকে।একদম কেন্দ্রে বিদ্যমান প্রচন্ড চাপ inner core কে বিপুল তাপমাত্রায়ও তরল হতে দেয়না।সে তুলনায় outer core এ চাপ কিছুটা কম।তাই উচ্চ তাপমাত্রায় এটা তরল অবস্থায় থাকে।এর বাইরে থাকে মূলত সিলিকেট  দ্বারা তৈরি ম্যান্টল (upper and lower mantle এ দুই ভাগে ভাগ করা যায়) আর সবার উপরে crust।

পৃথিবীর দুইপ্রান্তে চৌম্বক মেরু কেন সৃষ্টি হল বা ভূচুম্বকত্বের কারণ কি তা নিয়ে অনেক আগে থেকেই গবেষণা হয়ে আসছে এবং এখনো হচ্ছে।খুব সম্ভবত যদি 'Journey to the centre of the Earth' টাইপের কিছু করা যেত তাহলে হয়ত এতটা বিতর্ক থাকতনা!

একসময় ভাবা হত পৃথিবীর মধ্যে একটা বিশাল দন্ড চুম্বক আছে।এই চুম্বকের কারণেই ভূচুম্বকত্বের সৃষ্টি।কিন্তু যে কোন পদার্থের জন্যই কুরি তাপমাত্রা বলে একটা তাপমাত্রা আছে যার উপরে কোন তাপমাত্রায় ঐ পদার্থের চৌম্বকত্ব লোপ পায়।লোহার জন্য এর মান ১০৪৩ কেল্ভিন।তো কেন্দ্রে যদি একটা চুম্বক আসলেই থাকত তাহলে ঐ তাপমাত্রায় কিন্তু তার চুম্বক ধর্ম লোপ পেয়ে যেত।তাই এই যুক্তিটা ঠিক না।

১৯৩৯ সালে Walter Elsasser প্রস্তাবনা রাখেন ভূচুম্বকক্ষেত্রের সৃষ্টির পেছনে ডায়নামো মেকানিজম বলে একটা মেকানিজম কাজ করে।তার মতবাদটাই এখন পর্যন্ত বহুল প্রচলিত।টেক্সট বই থেকে শুরু করে গুগল করলেও ওনার মতবাদটাই সবচেয়ে বেশি চোখে আসবে।

                                                                                                                                                                                                                                                                                Walter Elsasser

উনি যা বলেন সহজ কথায় বললে তাকে এভাবে বলা যায় যে, inner core টা খুব উত্তপ্ত।এর বাইরের outer core তরল ও তাপমাত্রা inner core অপেক্ষা কম।প্রকৃতপক্ষে inner core থেকে যত উপরে যাওয়া যায় তাপমাত্রাও ততই কমতে থাকে।যেহেতু outer core তরল এবং এর উপরে ও নিচে তাপমাত্রার পার্থক্য বিদ্যমান,তাই পরিচলন প্রক্রিয়ায় তাপ সঞ্চালন শুরু হয়।অর্থাৎ inner core এর কাছে অবস্থিত outer core এর তরল বেশি উত্তপ্ত হয়ে যায়।তার আয়তন যায় বেড়ে এবং ঘনত্ব যায় কমে।কিন্তু outer core এর উপরের দিকের যে তরল আছে তা সে তুলনায় কম উত্তপ্ত বা বেশি ঘন থাকে।তাই নিচের কম ঘন তরল উপরে যেতে থাকে এবং উপরের বেশি ঘন তরল নিচে আসতে থাকে, শুরু হয় পরিচলন স্রোত।

শুধু তাই না,পৃথিবীর নিজেরও একটা আবর্তন বেগ আছে।এই বেগের কারণে ও পরিচলন স্রোতের কারণে outer core এর তরল এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যেতে থাকে।outer core এ যে পদার্থ থাকে তা অত্যন্ত উচ্চ তাপমাত্রায় আয়নিত অবস্থায় থাকে।তাই যখন এই চার্জিত কণা এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যায় বা তড়িতশক্তির সৃষ্টি হয়, তখন একটা চৌম্বকক্ষেত্রেরও সৃষ্টি হয় (আমরা জানি যে,গতিশীল চার্জ চৌম্বকক্ষেত্র তৈরি করতে পারে)।

অর্থাৎ এই পরিচলন স্রোতের কারণে (যার যান্ত্রিক শক্তি থাকে) তড়িৎ শক্তি সৃষ্টি হয়।ঠিক ডায়নামো বা জেনারেটর যা করে তাই কিন্তু হল অর্থাৎ যান্ত্রিক শক্তি তড়িৎ শক্তিতে পরিণত হল।তাই একে ডায়নামো মেকানিজম বলা হয়।এই তড়িতশক্তিই পরবর্তীতে চুম্বকক্ষেত্রের সৃষ্টি করে যাকে আমরা ভূচুম্বকক্ষেত্র বলে থাকি।

 মজার ব্যাপার হচ্ছে এরও কিছু ত্রুটি আছে।সেগুলো আর আলোচনা করলাম না।

commented Oct 30, 2013 by Salman Yasin (231 points)
ব্যাখ্যাটি অসাধারণ...
commented Nov 15, 2013 by Masoom Reza (145 points)
thank you.....
commented Oct 16, 2014 by Mahmudul (1,024 points)
খুব ভালোভােব ব্যাখা দিয়েছেন। ধন্যবাদ।

Question followers

0 users followed this question.

Related questions

3 like 0 dislike
1 answer 83 views

4,676 questions

5,801 answers

1,861 comments

15,944 users

84 Online
6 Member And 78 Guest
Most active Members
this month:
    Gute Mathe-Fragen - Bestes Mathe-Forum
    ...